কালিদাসের মেঘদূত শ্লোক ১১২-১১৫ (উত্তর মেঘ) – অনুবাদ নরেন্দ্র দেব

১১২
শারঙ্গধর বিষ্ণু যখন সর্প-শয়ান উঠিবে ছাড়ি’,
আমার শাপের অন্ত তখন, দেখা হবে পুন ফিরিলে বাড়ি!
শারদ নিশীথে চাদেঁর আলোয় আবার দু’জনে মিলিব সুখে
এই ক’টা মাস স’য়ে থাকো সখী যা-কিছু কামনা কাঁদায় দুখে।
১১৩
একদা আমার কন্ঠ বেড়িয়া আরামে যখনঘুমায়ে ছিলে,
সুপ্তির মাঝে সহসা কাঁদিয়া আমারেও সখী কাঁদায়ে দিলে!
শুধানু তোমারে কি হ’ইয়েছে বলো নিবিড় আদরে জড়ায়ে বুকে
‘হেরিনু স্বপনে আন নারী লয়ে খেলিছ’ কহিলে সহাস মুখে!
১১৪
আমার কুশল বারতা যেদিন জানিবে আমার অভিজ্ঞানে,
হয়ত সেদিন, কাজল-নয়না! খনেক শান্তি লভিবে প্রাণে!
থাকনা যেখানে দয়িত তোমার, সে নহে কখনো অবিশ্বাসী,
মিলন অভাবে বাড়ে ভালবাসা, বিচ্ছেদে প্রেম যায়না ভাসি’।
১১৫
উগ্র হয়েছে প্রথম বিরহে তোমার সখির যে দুখ ভার
আশ্বাসবাণী শুনাইয়া প্রিয়, লঘু ক’রে দেই বেদনা তার,
মহেশ বাহন বৃষভশৃঙ্গে বিদীর্ণ শিলা লঙ্ঘি’ ত্বরা
বাঁচাও আমারে শুভ সংবাদে, সে যে প্রভাতের কুন্দ ঝরা!
মুল শ্লোক
১১২
শাপান্তো মে ভুজগশযনাদুত্থিতে শার্ঙ্গপাণৌ
শেষান্মাসান্ গময চতুরো লোচনে মীলযিত্বা
পশ্চাদাবাং বিরহগুণিতং তং তমাত্মাভিলাষং
নির্বেক্ষ্যাবঃ পরিণতশরচ্চন্দ্রিকাসু ক্ষপাসু
১১৩
ভূযশ্চাহ ত্বমপি শযনে কণ্ঠলগ্নাপুরা মে
নিদ্রাং গত্বা কিমপি রুদতী সস্বনং বিপ্রবুদ্ধা
সান্তর্হাসং কথিতমসকৃত্ পৃচ্ছতশ্চ ত্বযা মে
দ্র্ষ্টঃ স্বপ্নে কিতব রমযন্ কামপি ত্বং মযেতি
১১৪
এতস্মান্ মাং কুশলিনমভিজ্ঞানদানাদ্ বিদিত্বা
মা কৌলীনাচ্চকিতনযনে ময্যবিশ্বাসিনী ভূঃ
স্নেহানাহুঃ কিমপি বিরহে ধ্বংসিনস্তে ত্বভোগাদ্
ইষ্টে বস্তুন্যুপচিতরসাঃ প্রেমরাশীভবন্তি
১১৫
আশ্বাস্যৈবং প্রথমবিরহোদগ্রশোকাং সখীং তে
শৈলাদাশু ত্রিনযন্বৃষোত্খাতকূটান্নিবৃত্তঃ
সাভিজ্ঞানপ্রহিতকুশলৈস্তদ্বচোভির্মমাপি
প্রাতঃ কুন্দপ্রসবশিথিলং জীবিতংধারযেথাঃ

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s