কালিদাসের মেঘদূত শ্লোক ০২৯-০৩২ (পূর্ব মেঘ) – অনুবাদ নরেন্দ্র দেব

২৯
স্বল্প-সলিলা শীর্ণা সিন্ধু বিরহিণী-বেণী প্রায়,
তীর-তরুশাখে জীর্ণপর্ণ, মলিন পান্ডুছায়;
দেখে মনে হয়, দুরের পথিক! ভাগ্য তোমার ভাল,
বুকে নিয়ে তারে প্রণয় রসে আনন্দ-দীপ জ্বালো।
৩০
আবন্তীপুরে আসিলে শুনিবে গ্রামের বৃদ্ধ তথা,
কোবিদের মতো উদয়ন-গীতি কহিছে বৃহৎকথা
যে পথের কথা বলেছি পূর্বে, তুমি তারে অনুসরি’
শ্রীবিশালাপুরী উজ্জয়িনীতে যেও সেই পথ ধরি’
দেখে মনে হবে স্বর্গখানিক পুণ্য অন্তে তার-
বুঝিবা সহসা নামিয়া এসেছে মর্তে সে আবার!
৩১
প্রভাতে ফুটেছে যে কমল কলি, হরি’ তার পরিমল,
করে সমীরণ সারস কূজনে শিপ্রারে চঞ্চল!
গত নিশীথের সুরত-ক্লান্তি আদরে করিতে দূর
চাটুকার সম যাচে প্রিয়তম, মিনতি-করুন সুর!
৩২
সেথা সুন্দরী ধূপের ধোঁয়ায় সুবাস ছোঁয়ায় কেশে,
গবাক্ষ ভেদী সে ধূম তোমারে পুষ্টকরিবে এসে!
লভিবে সেথায় ভবনশিখীর নৃত্যের উপহার,
পুষ্পগন্ধে মোদিত হর্ম্য হেরিবেচমৎকার!
ললিতা বণিতা-পদরাগে যেথা লক্ষ্মীমন্ত দেশ
যাপিও সেথায় কিছুদিন সখা, সে পুরী লাগিবে বেশ!
মুল শ্লোক
২৯
বেণীভূতপ্রতনুসলিলাসাবতীতস্য সিন্ধুঃ
পাণ্ডুচ্ছাযা তটরুহতরুভ্রংশিভির্জীর্ণপর্ণৈঃ
সৌভাগ্যং তে সুভগ বিরহাবস্থযা ব্যঞ্জযন্তী
কার্শ্যং যেন ত্যজতি বিধিনা স ত্বযৈবোপপাদ্যঃ
৩০
প্রাপ্যাবন্তীনুদযনকথাকোবিদগ্রামবৃদ্ধান্
পূর্বোদ্দিষ্টামনুসর পুরীং শ্রীবিশালাং বিশালাম্
স্বল্পীভূতে সুচরিতফলে স্বর্গিণাং গাং গতানাং
শেষৈঃ পুণ্যৈর্হৃতমিব দিবঃ কান্তিমত্ খণ্ডমেকম্
৩১
দীর্ঘীকুর্বন্ পটু মদকলং কূজিতংসারসানাং
প্রত্যূষেষু স্ফুটিতকমলামোদমৈত্রীকষাযঃ
যত্র স্ত্রীণাং হরতি সুরতগ্লানিমঙ্গানুকূলঃ
শিপ্রাবাতঃ প্রিযতম ইব প্রার্থনাচাটুকারঃ
৩২
জালোদ্গীর্ণৈরুপচিতবপুঃ কেশসংস্কারধূপৈঃ
বন্ধুপ্রীত্যা ভবনশিখিভির্দত্তনৃত্ত্যোপহারঃ
হর্ম্যেষ্বস্যাঃ কুসুমসুরভিষ্বধ্বখেদং নযেথা
লক্ষ্মীং পশ্যংল্ললিতবনিতাপাদরাগাঙ্কিতেষু

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s