কালিদাসের মেঘদূত শ্লোক ০৮৪-০৮৭ (উত্তর মেঘ) – অনুবাদ নরেন্দ্র দেব

৮৪
স্বল্প-ভাষিণী ললিত ললনা, সে যে গো দ্বিতীয় জীবন মোর,
সাথীহারা যেন চক্রবাকীটি মাপিছেএকাকী বেদনা ঘোর।
দীর্ঘ দিনের গুরু উদ্বেগ উৎকন্ঠায় শীর্ণা বালা,
শিশির-মথিতা পদ্মিনী হেন রুপহীনা-সহি’ বিরহ জ্বালা।
৮৫
তিক্ত রোদনে সিক্ত নয়ন, উষ্ণ গভীর দীর্ঘশ্বাস,
বিবর্ণ দুটি রাঙা ঠোঁট তার, দেখিবে প্রিয়ার মলিন বাস,
শ্লথ কুন্তলে আবরিত মুখ-মেঘে যেন ঢাকা চাঁদের প্রায়,
রাখি’ করতলে ক্লিষ্ট কপোল বেদনা-বিভল দিবস যায়।
৮৬
ফুটল আকাশে দিনের আলো সে ব্যাকুলদেখিবে পূজার তরে,
হয়ত কখনো শীর্ণ আমার মূর্তিটি স্মরি চিত্র করে,
মধুর বচনে কভু সারিকায় শুধায় হয়ত’ – রসিকা, ওরে,
প্রভুর কথা কি মনে পড়ে সারি? ভালবাসিতেন তিনি যে তোরে!
৮৭
হেরিবে সৌম্য, ম্লান বেশবাস, বীণাখানি তার পড়িয়া কোলে,
আমার নামে যে সঙ্গীত রচি সাধ জাগে তার সুরটি তোলে;
নয়ন সলিলে তন্ত্রী ভিজিয়া হানে সাধে বাদ বারংবার,
দোষ যদি সারে, সুর যায় ভুলে – এম্‌নি কাতর হৃদয় তার।
মুল শ্লোক
৮৪
তাং জানীথাঃ পরিমিতকথাং জীবিতং মে দ্বিতীযং
দূরীভূতে মযি সহচরে চক্রবাকীমিবৈকাম্
গাঢোত্কণ্ঠা গুরুষু দিবসেষ্বেষুগচ্ছত্সু বালাং
জাতাং মন্যে শিশিরমথিতাং পদ্মিনীং বান্যরূপাম্
৮৫
নূনং তস্যাঃ প্রবলরুদিতোচ্ছূননেত্রং প্রিযাযা
নিঃষ্বাসানামশিশিরতযা ভিন্নবর্ণাধরোষ্ঠম্
হস্তন্যস্তং মুখমসকলব্যক্তি লম্বালকত্বাদ্
ইন্দোর্দৈন্যং ত্বদনুসরণক্লিষ্টকান্তের্বিভর্তি
৮৬
আলোকে তে নিপততি পুরা সা বলিব্যাকুলা বা
মত্সাদৃশ্যং বিরহতনু বা ভাবগম্যং লিখন্তী
পৃচ্ছন্তী বা মধুরবচনাং শারিকাংপঞ্জরস্থাং
কচ্চিত্ ভর্তুঃ স্মরসি রসিকে ত্বং হি তস্য প্রিযেতি
৮৭
উত্সঙ্গে বা মলিনবসনে সোম্য নিক্ষিপ্য বীণাং
মদ্গোত্রাঙ্কং বিরচিতপদং গেযমুদ্গাতুকামা
তন্ত্রীমার্দ্রাং নযনসলিলৈঃ সারযিত্বা কথং চিদ্
ভূযো ভূযঃ স্বযমপি কৃতাং মূর্ছনাং বিস্মরন্তী

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s