কালিদাসের মেঘদূত শ্লোক ০৬৪-০৬৭ (উত্তর মেঘ) – অনুবাদ নরেন্দ্র দেব

৬৪
বিদ্যুৎলতা ললিতা বণিতা-ইন্দ্রধনুর চিত্র প্রায়,
বাজে মৃদঙ্গ সঙ্গীত সুরে গম্ভীর গুরু মূর্চ্ছনায়;
গগনলগন মণিময় পুরী রচিত সেথায় দেখিবে জানি,
তোমার তুল্য অতুলন তারা, স্নেহনীরে ভরা হৃদয়খানি।
৬৫
লীলা কমলেতে বিধৃত কর, অলকে শোভিছে কুন্দ কলি,
লোধ চূর্ণে চর্চিত মুখ পান্ডু আননে চন্দ্রাবলী;
নবকুরুবকে সজ্জিত চূড়া; কর্ণে সুচারু শিরীষ দুল,
সীমন্তে দোলে তব স্নেহ-জাত বধূজনপ্রিয় কদমফুল।
৬৬
আখিঁ ঝরে শুধু পুলকে যেথায়, দুঃখশোকের চিহ্ন নাই,
কুসুম-শরের আঘাতে কেবল আনন্দ-তাপ যেথায় পাই;
প্রণয়-কলহ ভিন্ন যেথায় সুখে আছে সবে দ্বঙ্গহীন,
বিত্ত যেথায় নিত্য পূর্ণ, চির যৌবনে যাপিছে দিন।
৬৭
শুভ্রমনির হর্ম্যে যেথায় জ্যোতির ছায়ায় রচিত ফুল,
যক্ষেরা যেথা যাপে আনন্দে সাথে ল’য়ে প্রিয় প্রেয়সীকুল;
কল্পতরুর সজ্ঞ্যাতসুধা, মধুরতি ফল সেবি’ছে সুখে,
গম্ভীর তব নির্ঘোষ রব-পুষ্কর-প্রীতি জাগায়ে বুকে;
মুল শ্লোক
৬৪
বিদ্যুত্বন্তং ললিতবনিতাঃ সেন্দ্রচাপং সচিত্রাঃ
সঙ্গীতায প্রহতমুরজাঃ স্নিগ্ধগম্ভীরঘোষম্
অন্তস্তোযং মণিমযভুবস্তুঙ্গমভ্রংলিহাগ্রাঃ
প্রাসাদাস্ত্বাং তুলযিতুমলং যত্র তৈস্তৈর্বিশেষৈঃ
৬৫
হস্তে লীলাকমলমলকে বালকুন্দানুবিদ্ধং
নীতা লোধ্রপ্রসবরজসা পাণ্ডুতামাননে শ্রীঃ
চূডাপাশে নবকুরবকং চারু কর্ণে শিরীষং
সীমন্তে চ ত্বদুপগমজং যত্র নীপং বধূনাম্
৬৬
আনন্দোত্থং নযনসলিলং যত্র নান্যৈর্নিমিত্তৈঃ
নান্যস্তাপঃ কুসুমশরজাদিষ্টসংযোগসাধ্যাত্
নাপ্যন্যস্মাত্প্রণযকলহাদ্বিপ্রযোগপপত্তিঃ
বিত্তেশানাং ন চ খলু বযো যৌবনাদন্যদস্তি
৬৭
যস্যাং যক্ষাঃ সিতমণিমযান্যেত্যহর্ম্যস্থলানি
জ্যোতিশ্ছাযাকুসুমরচিতান্যুত্তমস্ত্রীসহাযাঃ
আসেবন্তে মধু রতিফলং কল্পবৃক্ষপ্রসূতং
ত্বদ্গম্ভীরধ্বনিষু শনকৈঃ পুষ্করেষ্বাহতেষু

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s